Trending Now

মুস্তাফিজের রাজস্থানের কাছে উড়ে গেল সাকিবের কলকাতা

টুর্নামেন্টের প্রথম ম্যাচ হায়দরাবাদের বিরুদ্ধে জেতার পর থেকে সময়টা যেন কিছুতেই ভাল যাচ্ছে না কলকাতা নাইট রাইডার্সের। রোহিতের মুম্বাই, বিরাটের ব্যাঙ্গালুর এবং ধোনির চেন্নাইয়ের পর চোট-আঘাতে জর্জরিত রাজস্থান রয়্যালসের বিরুদ্ধেও জিততে পারলেন না ইয়ন মর্গ্যানরা। ফের একবার ব্যাটিং ব্যর্থতাই ডোবাল নাইটদের।

গতকাল শনিবার (২৫ এপ্রিল) প্রথমে ব্যাট করে নির্ধারিত ২০ ওভারে মাত্র ১৩৩ রান করে নাইটরা। জবাবে ৭ বল বাকি থাকতে চার উইকেট হারিয়েই নির্ধারিত লক্ষ্যে পৌঁছে যায় রাজস্থান। এর ফলে টানা দ্বিতীয় ম্যাচে সাকিব আল হাসানকে ছাড়া খেলতে নেমে হারের মুখ দেখল কলকাতা। একই সঙ্গে তাদের উড়িয়ে টুর্নামেন্টে নিজেদের দ্বিতীয় জয় তুলে নিয়েছে মুস্তাফিজুর রহমানের দল রাজস্থান রয়্যালস।

বেন স্টোকস চোটের কারণে আগেই ছিটকে গিয়েছিলেন। নাইটদের বিরুদ্ধে নামার আগে গত শুক্রবার আরও একটি ধাক্কা খায় রাজস্থান শিবির। চোট পুরোপুরি না সারায় এবারের আইপিএল থেকে ছিটকে যান দলের তারকা পেসার তথা আরেক ইংল্যান্ড ক্রিকেটার জোফ্রা আর্চারও। ফলে অনেকটাই পিছিয়ে শুরু করেছিল রাজস্থান। কিন্তু এত কিছুর পরেও জঘন্য ব্যাটিংয়ের খেসারত দিতে হল শাহরুখ খানের দলকে।

 

টস জিতে প্রথমে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন রাজস্থান অধিনায়ক সঞ্জু স্যামসন। আর তার সিদ্ধান্তের মান রাখেন দলের বোলাররাও। শুরুতেই ১১ রান করে ফিরে যান শুভমন গিল। এরপর আরেক ওপেনার রানা এবং ত্রিপাঠি দলের হাল ধরেন। কিন্তু পাওয়ার প্লে শেষ হতেই ছন্নছাড়া হয়ে পড়েন নাইট ব্যাটসম্যানরা। পরপর ফিরে যান রানা (২২), নারিন (৬) এবং মর্গ্যান (০)। এর মধ্যে কেকেআর অধিনায়ক কোনও বল খেলারও সুযোগ পাননি। ত্রিপাঠির সঙ্গে ভুল বোঝাবুঝিতে রান আউট হন তিনি।

এরপর ব্যক্তিগত ৩৬ রান করে আউট হয়ে যান ত্রিপাঠিও। শেষপর্যন্ত নির্ধারিত ২০ ওভারে ৯ উইকেটে ১৩৩ রানেই থেমে যায় নাইটদের ইনিংস। কার্তিক (২৫) রান পেলেও ব্যর্থ রাসেল-কামিন্সরা। এদিন, দারুণ বোলিং করেছেন টাইগার ‘কাটার মাস্টার’ মুস্তাফিজ। রাজস্থান টপঅর্ডারকে মূলত ভুগিয়েছেন তিনিই। শেষটা করেছেন মরিস।
চার ওভারে মাত্র ২৩ রান দিয়ে চার উইকেট তুলে নেন এই প্রোটিয়া অলরাউন্ডার। আর ৪ ওভারে ২৩ রানে ১টি উইকেট নিয়েছেন মুস্তাফিজ।

মাত্র ১৩৪ রান তাড়া করতে নেমে শুরুতেই অবশ্য বাটলারের উইকেট হারায় রাজস্থান। মাত্র ৫ রান করে বরুণের বলে আউট হয়ে যান ইংরেজ ব্যাটসম্যান। এরপর আরেক ওপেনার যশস্বীও বেশিক্ষণ ক্রিজে ছিলেন না। ২২ রান করে আউট হয়ে যান তিনিও। তবে অধিনায়ক সঞ্জু এবং শিবম দুবে রাজস্থান ইনিংসের হাল ধরেন। দুইজন মিলে জুটিতে ঝড়ো ৩৫ রান যোগ করেন।

পরবর্তীতে শিবম (২২) এবং রাহুল তেওটিয়ার (৫) উইকেট হারায় রাজস্থান। যদিও তাতে তাদের জয় আটকায়নি। অধিনায়ক সঞ্জু এবং ডেভিড মিলারের (২৪*) ব্যাট ভর করে সাত বল বাকি থাকতেই নির্ধারিত লক্ষ্যে পৌঁছে যায় রাজস্থান। ৪২ রান করে শেষপর্যন্ত অপরাজিত থাকেন সঞ্জু। নাইট বোলারদের মধ্যে বরুণ দু’টি উইকেট পান। এছাড়া একটি করে উইকেট পান মাভি এবং প্রসিদ্ধ কৃষ্ণা।

About STAR CHANNEL

Check Also

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরছেন এবি ডি’ ‌ভিলিয়ার্স‌

দীর্ঘদিন ধরেই জল্পনা চলছিল। সেই জল্পনাই এবার হয়তো সত্যি হতে চলেছে। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফের ফিরতে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *