Trending Now

চট্টগ্রামের ছয় লেন প্রকল্প: অবিলম্বে সড়কবাতি স্থাপনের ব্যবস্থা করা হোক

কোনো সড়ক নির্মাণ প্রকল্পে বাতি স্থাপনের বিষয়টি অন্তর্ভুক্ত থাকবে এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু বন্দরনগরী চট্টগ্রামের একমাত্র ছয় লেন মহাসড়কের নির্মাণকাজ সম্পন্ন হয়েছে সড়কবাতি ছাড়াই। শুধু সম্পন্ন নয়, এর উদ্বোধন হয়েছে ১৬ মাস আগে। কিন্তু এখনো স্থাপন করা হয়নি সড়কবাতি। ফলে শতকোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত এ মহাসড়কের শতভাগ সুফল পাচ্ছেন না নগরবাসী।

সড়কটিতে যান চলাচল করছে; তবে ঝুঁকি নিয়ে। সড়কবাতি না থাকায় রাতে যানবাহন চলাচল বিঘ্নিত হচ্ছে। অন্ধকার সড়কে জননিরাপত্তা পড়ছে হুমকির মুখে। বাতির ব্যবস্থা ছাড়াই সড়ক নির্মাণ করা হয়েছে, এটি অত্যন্ত পরিতাপের বিষয়। এদিকে অবিলম্বে দৃষ্টি দেওয়া প্রয়োজন।

জানা যায়, প্রকল্পটিতে সড়কবাতি স্থাপনের জন্য বরাদ্দ রাখা হলেও সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর তা না লাগিয়েই প্রকল্পের কাজ সম্পন্ন করেছে। পরে সিদ্ধান্ত হয়েছে, বাতি স্থাপনের কাজটি করবে সিটি করপোরেশন। তবে বিষয়টি এখনো নাকি চিঠি চালাচালির পর্যায়ে রয়েছে। বস্তুত বাতিবিহীন সড়ক নির্মাণে প্রকল্প যে পূর্ণতা পায় না, তা বলাই বাহুল্য।

অথচ প্রায়ই দেখা যায় অনেক প্রকল্পের কাজই এভাবে সম্পন্ন করা হয়। এতে জনগণ প্রকল্পটির সুফল থেকে যেমন বঞ্চিত হয়, তেমনি পরে প্রকল্পের অন্যান্য কাজ করতে গেলে সরকারের ব্যয় বাড়ে। এটি এক ধরনের অপচয়। কাজেই এ ধরনের প্রবণতা ত্যাগ করা উচিত বলে মনে করি আমরা।

চট্টগ্রামের বহদ্দারহাট-শিকলবাহা ৮ কিলোমিটার দীর্ঘ সড়কটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। নগরীর প্রবেশপথ হিসাবে চিহ্নিত বহদ্দারহাট থেকে শিকলবাহা পর্যন্ত এ ছয় লেনের সড়কটি ব্যবহার করে দক্ষিণ চট্টগ্রামের আট উপজেলার মানুষ চট্টগ্রাম শহরে প্রবেশ করে।

এছাড়া বান্দরবান ও কক্সবাজার জেলার বাসিন্দারাও এ মহাসড়ক ব্যবহার করে থাকে। এ অবস্থায় জনস্বার্থের কথা বিবেচনা করে অবিলম্বে এ মহাসড়কে বাতি স্থাপনের ব্যবস্থা নেওয়া হবে, এটাই কাম্য।

About STAR CHANNEL

Check Also

কর্মক্ষেত্রে যৌন সহিংসতা : আমাদের করণীয়

স্বাধীনতা-পরবর্তী ৫০ বছরে বাংলাদেশে কর্মক্ষেত্রে ও শিক্ষাক্ষেত্রে নারীর অংশগ্রহণ বৃদ্ধি পেয়েছে অনেক। যদিও প্রাতিষ্ঠানিকভাবে শিক্ষিত …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *