Trending Now

টেকনাফ থেকে দুই দিনে সাড়ে ১৩০০ রোহিঙ্গাকে উখিয়ায় স্থানান্তর

কক্সবাজারের টেকনাফের বাহারছড়ার শামলাপুর ২৩ নম্বর রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে বৃহস্পতিবার আবারও ১৪১টি পরিবারের ৬৬৭ জন রোহিঙ্গা নাগরিককে উখিয়ার রোহিঙ্গা ক্যাম্পে স্থানান্তর করা হয়েছে।

এর আগে বুধবার ১৪৪টি পরিবারের ৬৭০ জন রোহিঙ্গাকে উখিয়ার ২০ নম্বর রোহিঙ্গা ক্যাম্পে স্থানান্তর করা হয়। পরিবারগুলোকে নেওয়া হয়েছে কুতুপালং ও বালুখালী রোহিঙ্গা ক্যাম্পে।

এ নিয়ে দুই দিনে ২৮৫টি পরিবারের ১ হাজার ৩৩৭ রোহিঙ্গা নাগরিককে কুতুপালং ও বালুখালী রোহিঙ্গা ক্যাম্পে স্থানান্তর করা হলো। এ ক্যাম্পে ১২ হাজারের বেশি রোহিঙ্গা বসবাস করছে। এ স্থানান্তর প্রক্রিয়া চলমান থাকবে বলে জানা গেছে।

 

বাহারছড়া ইউপি চেয়ারম্যান আজিজ উদ্দিন ও শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনারের কার্যালয় সূত্র বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভ সড়কের গুরুত্ব বিবেচনা করে এবং পর্যটন এলাকা হিসেবে পর্যটকদের নিরাপত্তার স্বার্থে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। বাহারছড়ার শামলাপুর ক্যাম্পটি খালি করে রোহিঙ্গাদের উখিয়াসহ অন্য ক্যাম্পে নেওয়া হচ্ছে।

শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনারের কার্যালয়ের কর্মকর্তা, বাহারছড়ার শামলাপুর ক্যাম্পের ইনচার্জ (সিনিয়র সহকারী সচিব) পুলক কান্তি চক্রবর্তী বলেন, সরকারের নির্দেশনায় শামলাপুর ক্যাম্পটি খালি করে রোহিঙ্গাদের উখিয়ার বিভিন্ন শিবিরে নেওয়া হচ্ছে। গত দুই দিনে ক্যাম্প থেকে ২৮৫টি পরিবারের ১ হাজার ৩৩৭ জনকে স্থানান্তর করা হয়েছে।

বাহারছড়ার শামলাপুর ২৩ নম্বর রোহিঙ্গা শিবিরের বিভিন্ন ব্লক থেকে উখিয়ার কুতুপালং ও বালুখালী শিবিরে যেতে ইচ্ছুক এমন ১৪১টি পরিবারের ৬৬৭ জন রোহিঙ্গা নারী-পুরুষ ও শিশুকে বৃহস্পতিবার স্থানান্তর করা হয়েছে। বুধবার থেকে শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনারের কার্যালয়ের (আরআরআরসি) মাধ্যমে এ স্থানান্তর কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

About STAR CHANNEL

Check Also

লকডাউনে বের হতে মুভমেন্ট পাসের জন্য প্রথম ঘণ্টায় আবেদন ১ লাখ ২৫ হাজার

লকডাউনে জরুরি প্রয়োজনে বের হতে মুভমেন্ট পাসের জন্য প্রথম ঘণ্টায় ১ লাখ ২৫ হাজার মানুষ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *