Trending Now

শেরপুরে দোকানে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড, মালামাল পুড়ে ছাই

 

বগুড়ার শেরপুরে বিনোদপুর বাজারে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। সোমবার দিবাগত রাত পৌনে ২টার দিকে এই অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়।

খবর পেয়ে শেরপুর ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছেন। পরে স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় প্রায় দুই ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

জানা যায়, বগুড়ার শেরপুর উপজেলার সুঘাট ইউনিয়নের বিনোদপুরে বাজারটির অবস্থান। সেখানে বেশ কয়েকটি মুদি দোকানসহ তেল-সার ও কীটনাশকের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। এর মধ্যে একটি দোকানের বিদ্যুতের শর্ট সার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত ঘটে। মুহূর্তের মধ্যে সাইমা স্টোর ও ভাই-বোন স্টোর নামের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানসহ অন্যান্য দোকানে আগুন ছড়িয়ে পড়ে। দোকানে থাকা বিভিন্ন মালামাল ও ক্যাশ বাক্সে থাকা নগদ টাকা পুড়ে ছাই হয়ে যায়।

 

সাইমা স্টোরের মালিক ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ী সুলতান মাহমুদ জানান, রাতে আগুন লাগার খবর পেয়ে দোকানে আসেন এবং ফায়ার সার্ভিস স্টেশনে ফোন দিয়ে জানান। তারা এসে আগুন নেভান। এরই মধ্যে দোকানের ক্যাশ বাক্সে রাখা নগদ চার লাখ টাকা, কীটনাশক, সিমেন্ট, ডিজেল-পেট্রল ও সার পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। এই অগ্নিকাণ্ডে তার ব্যবসা-প্রতিষ্ঠানে প্রায় ৯ লাখ টাকার মতো ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

আরেক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ভাই-বোন স্টোরের স্বত্বাধিকারী ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ী সুজন মিয়া জানান, এই অগ্নিকাণ্ডে তার মুদি দোকানের সব মালামাল পুড়ে গেছে। এছাড়া ক্যাশ বাক্সে রাখা নগদ ৪১ হাজার ৪০০ টাকাও পুড়ে গেছে। সব মিলিয়ে তার প্রায় ৬ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

বগুড়ার শেরপুর ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের স্টেশন কর্মকর্তা রতন হোসেন জানান, বিদ্যুতের শর্ট সার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে নিশ্চিত হওয়া গেছে। আগুন লাগার খবর পেয়েই দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হয়। তবে তাদের যাওয়ার আগেই ওই দুই দোকানের সব মালামাল পুড়ে ছাই হয়ে গেলেও বাজারের অন্যান্য ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলো আগুন থেকে রক্ষা পেয়েছে।

বগুড়ার শেরপুর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) এসএম আবুল কালাম আজাদ বলেন, বিনোদপুর বাজারে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে দুইটি দোকানে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

About STAR CHANNEL

Check Also

ছেলের বিয়ের দিন মা জানতে পারেন হবু পুত্রবধূ তারই মেয়ে, অতঃপর..!

ছেলের হবু বউকে দেখে বিয়ের দিন সন্দেহ হয় মায়ের। পরে জানা যায়, ছেলের হবু পুত্রবধূ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *